শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতি নেওয়ার টিপস – 2024

শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতি

শিক্ষা জীবন শুরু হয় কিন্তু শেষ হয় না। চাকরির জন্য প্রস্তুতি নিতে হলেও আপনাকে শূণ্য থেকে শুরু করতে হবে। এই লেখাতে শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতি নেওয়ার কিছু ভিন্ন টিপস শেয়ার করবো। শেয়ার করা টিপস গুলো অনুসরণ করে জানতে পারেন কিভাবে শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে।

শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতি টিপস

স্কুল জীবন থেকে চাকরির জন্য প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করা উচিত। তবে আমাদের দেশে ভিন্ন চিন্তা করে সবাই। সবাই মনে করেন পড়াশোনা শেষ হলে চাকরির প্রস্তুতি শুরু করবে। বসে থাকার দিন শেষ হয়ে গেছে। এখন ভিন্ন ধারায় পড়াশোনা চলছে।

আগের মতো বসে থাকার সময় এখন আর নেই। প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হওয়ার জন্য শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতি শুরু করতে হবে স্কুল বা কলেজ জীবন থেকে। পাশাপাশি আমাদের শেয়ার করা কয়েকটি টিপস অনুসরণ করতে পারেন।

সিলেবাস ঠিক করে নিন

দিক ছাড়া চলাফেরা ঠিক নয়। চলাচলের জন্য যেকোনো একটা দিক ঠিক করে চলাচল করতে হবে। আমরা যখন কোনো কাজ করি তখন একটা নিয়ম মনের মধ্যে তৈরি করে কাজ করি। যদি কোনো জায়গায় ঘুরতে যায় একটা দিক ঠিক করে ঘুরতে বের হই।

অনুরূপভাবে শূন্য থেকে প্রস্তুতি শুরু করার জন্য একটা সিলেবাস ঠিক করা প্রয়োজন। সিলেবাসের বাহিরে গিয়ে পড়া সম্ভব না। যদি আপনার একটা নির্দিষ্ট সিলেবাস থাকে, তাহলে আপনার পড়া শেষ করতে সুবিধা হবে। এজন্য প্রথমেই একটা সিলেবাস ঠিক করতে হবে।

চাকরির জন্য আসলে সিলেবাস মেনে পড়ে যাওয়া ঠিক না। তবে শূন্য থেকে প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য প্রাথমিক একটা সিলেবাস গুরুত্বপূর্ণ।

সঠিকভাবে এনালাইসিস করুন

এনালাইসিস করে যেকোনো কাজ করার মধ্যে প্রফিট রয়েছে। কাজ করার আগে এবং কাজ করার পরে এনালাইসিস করতে হবে। একটা সিলেবাস ঠিক করার পরে আন্দাজে পড়তে থাকলে হবেনা। আপনি যতটুকু পড়ার জন্য ঠিক করলেন তা আসলেই শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতির জন্য যথেষ্ট কিনা তা যাচাই করে নিতে হবে। এটা করার জন্য নিজের সিদ্ধান্ত ও একজন ভালো অভিজ্ঞ ব্যক্তির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা যেতে পারে।

প্রথম ধাপে আপনি একবার এনালাইসিস করার পরে সেটাকে আরও ফিল্টার করার জন্য একজন অভিজ্ঞ ব্যক্তিকে দিয়ে পুনরায় এনালাইসিস করবেন। ফলে আপনি যথেষ্ট ভালো একটা নোট তৈরি করতে পারবেন যেটা চাকরির প্রস্তুতির জন্য ভালো হবে।

ভালো সিরিজের একটা চাকরির বই অনুসরণ করুন

বাজারে নতুন নতুন অনেক রকমের চাকরির প্রস্তুতি বই আসছে৷ যেকোনো একটা ভালো সিরিজের বই কিনে নিতে হবে। বই কিনার জন্য একজন অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে বই কিনবেন।

শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য ভালো মানের একটা সিরিজ বই যথেষ্ট হতে পারে। কিন্তু হাজার হাজার বইয়ের মধ্যে থেকে সঠিক বই বাঁচাই করে নিতে হবে। এটা নিয়ে বর্তমানে ব্যবসা হচ্ছে। মার্কেটিংয়ের জোরে অনেক অপ্রয়োজনীয় বই বিক্রি হচ্ছে। তাই প্রচার দেখে নয়, ভালো তথ্য দেখে বইটি কিনতে চেষ্টা করবেন।

গত সময়ের চাকরির প্রশ্ন সংগ্রহ করে পড়ুন

যারা ইতিমধ্যে বিভিন্ন চাকরির পরিক্ষা দিয়েছে তাদের কাছ থেকে প্রশ্ন সংগ্রহ করে পড়ুন। পুরোনো প্রশ্ন থেকে চাকরির নিয়োগ পরিক্ষায় বেশি প্রশ্ন কমন আসে। আপনি নিজেও যেসকল পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করবেন সেসকল পরিক্ষার প্রশ্ন সংগ্রহ করে রাখবেন।

যেকোনো নতুন চাকরির পরিক্ষায় যাওয়ার আগের রাতে পুরোনো প্রশ্ন গুলো দেখে নিবেন। এগুলো থেকে ভালো কমন পাবেন। এমনকি এগুলো পড়ার কারণে প্রশ্নের ধরন সম্পর্কে একটা ধারণা পাবেন।

একজন শিক্ষককে মেন্টর বানিয়ে নিন

জীবনের জন্য একজন ভালো মেন্টর বানিয়ে নেওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একজন মেন্টর আপনার কাজের ভুল ধরে দিয়ে সঠিকভাবে সংশোধন করতে সাহায্য করবে। আমি নিজেও এটা থেকে যথেষ্ট উপকৃত হয়েছি। আমার অনেকগুলো শিক্ষক জীবনের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করে।

বর্তমান বিশ্বের মধ্যে সফল ব্যক্তিরা কোনো না কোনো একজন মেন্টর কে অনুসরণ করেন। যার মেন্টর যত ভালো সে ততই উন্নতি করেছে। আপনি এবিষয়ে জানার জন্য বিশেষ মানুষের জীবনী পড়তে পারেন। এখান থেকেও অনেককিছু শিখতে পারবেন।

আশাকরি লেখাটি শূন্য থেকে চাকরির প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য ভূমিকা রাখবে। এখানে আমরা যে কয়েকটি টিপস আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি এগুলো আনুসরণ করুন। অনেক বেশি পরিশ্রম করার কোনো প্রয়োজন নেই। সঠিকভাবে সামান্য পরিশ্রম চাকরির জন্য যথেষ্ট।

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *